একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট যদি আমরা তৈরী করতে চাই, তাহলে নতুন সবার মধ্যেই একটা কনফিউশান চলে আসে।আর তা হলো-

  • ব্লগার নাকি ওয়ার্ডপ্রেস? কোনটা দিয়ে আমরা শুরু করবো?

আজ আমরা এ বিষয় টি নিয়েই কথা বলবো।
লেখা শেষে আপনার সমস্ত কনফিউশান দূর হয়ে যাবে।

ব্লগার নাকি ওয়ার্ডপ্রেস?

প্রথমেই বলে নেই, ব্লগার বলেন বা ওয়ার্ডপ্রেস দুটো CMS (Content Management System) -ই ভালো ও অনেক বেশি জনপ্রিয়।

পুরো পৃথিবীতে যত CMS আছে তাদের মধ্যে এ দুটি প্লাটফর্ম সেরা ও লোকেরা অনেক বেশি ব্যবহার করে।

তবে “ব্লগার আর ওয়ার্ডপ্রেস” এর মাঝে যদি তুলনামূলক পার্থক্য করি, তাহলে অনেক গুলো বিষয় এখানে চলে আসে।

আপনি পড়বেন আর বুঝে নিবেন আপনার জন্য ও আপনার কাজের জন্য ঠিক কোনটা পছন্দ করা ঠিক হবে।তো চলুন, শুরু করি।

Praice (দাম)

Pricing

Blogger সম্পূর্ণ গুগলের একটি প্রোডাক্ট। আর এতে আপনি কোন রকমের কোন টাকা খরচ ছাড়াই নিজের জন্য একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ বানিয়ে নিতে পারেন।

আমরা যেমন গুগলের প্রোডাক্ট – জিমেইল, ইউটিউব, গুগল ড্রাইভ ইত্যাদি ব্যবহার করি ব্লগার ও ঠিক তেমনি একটি প্লাটফরম।

যেখানে গুগল আমাদেরকে সম্পূর্ণ ফ্রীতেই তাদের সার্ভিস ব্যবহার করতে দেয়, ও কোন রকম খরচ ছাড়াই একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট আমরা বানিয়ে নিতে পারি।

কিন্তু আমরা যদি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করতে যাই, তার জন্য আমাদেরকে কিছু টাকা অবশ্যই খরচ করতে হবে।

কারণ ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করতে হলে আমাদেরকে আলাদাভাবে ডোমেইন ও হোস্টিং কিনে নিতে হয়।

Domain (ডোমেইন): আপনার ওয়েবসাইট এর পুরো নাম যেমন Techmoshai.info
Hosting (হোস্টিং): আপনার ওয়েবসাইট রাখার জয়গা।

আপনি যদি ডোমেইন, হোস্টিং সম্পর্কে না জানেন- তাহলে এটা পড়ুন,

যদিও গুগলে বিনামূল্যে ডোমেইন ও হোস্টিং পাওয়া যায় পাওয়া যায়।কিন্তু গুগল এর দেয়া ডোমেইন এর সাথে blogspot লেখা যুক্ত হয়ে যায়।

যা মোটেই প্রফেশনাল দেখায় না।

যেমন আমরা যদি আমাদের ওয়েবসাইট “টেকমশাই” কে গুগল এর ফ্রী সার্ভিস দিয়ে ব্যবহার করা হতো তাহলে এর নাম Techmoshai.info না হয়ে Techmoshai.blogspot.com হতো।

যা আমার কাছে মোটেও ভালো লাগে নি। আর এটা প্রফেশনাল ও দেখায় না।

এ জন্যই আমরা আলাদা করে Domain কিনেছি। আর Techmoshai.info নামে প্রচার করেছি।

তাই ব্লগার নাকি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করবেন’ এ সমস্যায় আপনি যদি থাকেন আর বাজেট এ যদি সমস্যা থাকে, তাহলে আপনার জন্য ব্লগার ই ভালো হবে।

  • Easiness (কোনটি বেশি সহজ)

ব্লগার বা ওয়ার্ডপ্রেস– ব্যবহার করতে গেলে এ দুটোর মাঝে সহজ কোনটা হবে?

এ প্রশ্নটা নতুন সবার মাথাতেই চলে আসে।তাদের জন্য বলি, ব্লগার এ অপশন বা ফাংশনগুলো কম হয়ে থাকে।

যার কারনে ব্লগার ব্যবহার করাটা ওয়ার্ডপ্রেসের চেয়ে তুলনামূলক সহজ।তবে ওয়ার্ডপ্রেস ও কঠিন কিছু না।

আপনি এক – দুই সপ্তাহ ব্যবহার করলেই ওয়ার্ডপ্রেসের জন্য সাধারণভাবে প্রয়োজনীয় সব কিছুই শিখে ফেলবেন।

এমন কিছু ওরা দেয় না, যা ব্যবহার করতে গেলে আপনাকে হিমশিম খেতে হয়।

সুতরাং ব্লগার বা ওয়ার্ডপ্রেস দুই প্লাটফর্ম কেই আমরা ব্যবহারের জন্য সহজ ই বলতে পারি।

Themes and Plugins (থিমস & প্লাগিন্স)

আপনি যদি ব্লগিং এর দুনিয়ায় একেবারে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে হয়তো থিম আর প্লাগিন এর ব্যপারটা আপনার কাছে নতুন মনে হবে।

আমি বিষয়গুলো সম্পর্কে আপনাদের ধারণা দিচ্ছি।

Theme (থিম)

আপনার ওয়েবসাইট এর পুরো গঠন যে কোডিং এর মাধ্যমে করা হয়, সেই পুরো কোডিং কেই একসাথে থিম বলা যেতে পারে।

আরোও সহজ করে বললে, আপনার ওয়েবসাইট এর পুরো ডিজাইনটাই হচ্ছে থিম।

যেমন, আপনার ওয়েবসাইট এর নাম বা লগো কোথায় হবে? কতবড় হবে? মেনু কেমন হবে? পোস্ট গুলো কিভাবে ওয়েবসাইটে দেখাবে? ওয়েবসাইট এর কোন অংশে কি হবে? কালার কি হবে?ইত্যাদি বিষয়গুলো কোডিং এর মাধ্যমে করা হয়।

আর এই পুরো ডিজাইন ই হচ্ছে থিম।

Plugin (প্লাগিন)

প্লাগিন হচ্ছে কম্পিউটারে থাকা ছোট ছোট সফটওয়্যার এর মতো। অথবা আমরা ফোনে যেমন বিভিন্নএপ্স ব্যবহার করেন।

প্লাগিন ও ঠিক সেরকম ই।

আমরা আমাদের কাজের জন্য প্রতিদিন কিছু না কিছু প্রয়োজনীয় এপ্স ব্যবহার করি।ক্যালকুলেটর ব্যবহার করে হিসেব করি বা ক্যামেরা ব্যবহার করে ছবি তুলি।

এপ্স যেমন ফোনে কিছু বাড়তি সুবিধা এনে দেয়, প্লাগিন ও ঠিক সেরকম।

প্লাগিন আমাদের ওয়েবসাইটে কিছু বাড়তি সুবিধা এনে দেয়।

এটা পড়ুন,

তো বলা যায় থিম ও প্লাগিন এর ব্যপারটা পুরোপুরি বুঝতে পেরেছেন।

এখন আসি মূল বিষয়ে,
ব্লগার কে যদি ব্লগিং এর জন্য আপনি নেন তাহলে ব্লগার এ খুব কম থিম ই রয়েছে ফ্রীতে ব্যবহার করার জন্য।

যেগুলো ব্যবহার করলে আপনাকে কোন রকম কোডিং জ্ঞান থাকা লাগবে না।

অপরদিকে ওয়ার্ডপ্রেসে আপনার জন্য এরকম হাজার হাজার থিম রয়েছে।যা ওয়ার্ডপ্রেস আপনাকে ফ্রি তেই ব্যবহার করতে দিবে।

আপনি যে পারপোসেই ওয়েবসাইট তৈরী করতে চান সেটা ই-কমার্স ই হোক লেখালেখির জন্যই হোক।

ওয়ার্ডপ্রেসে আপনি অনেক বেশি ফ্রী থিম পাবেন। যেগুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইট কে সুন্দর ও সহজতর করে ফেলতে পারেন।

অন্যদিকে প্লাগিন,
ওয়ার্ডপ্রেসে ব্যবহার করার জন্য লক্ষ লক্ষ ছোট ছোট প্লাগিন রয়েছে, যেগুলো দিয়ে আমরা ব্লগিং বা ই-কমার্স বিজনেস কে অনেক সহজ ও সুন্দর করতে পারি।

কিন্তু গুগলের ফ্রী ব্লগার এ এই সুবিধা টি একদম ই থাকছে না। এতে কোন রকম প্লাগিন ব্লগার আমদেরকে ব্যবহার করতে দেয় না।

আপনি যদি ব্লগার ব্যবহার করেন, তাহলে ওয়েবসাইট এর যে কোন ছোটখাট পরিবর্তন চাইলে বা বাড়তি কিছু সুবিধা যোগ করতে চাইলে আপনাকে কোডিং করতে হবে।

যদিও কোডিং জ্ঞান আসলে বেশিরভাগ লোকের ই থাকে না।

  • SEO (এস ই ও)

SEO বা Search Engine Optimization একটি ওয়েবসাইট এর জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

Seo জানা ছাড়া আপনি কখনোই আপনার সাইটকে গুগলে বা এরকম সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে র‍্যাঙ্ক করতে পারবেন না।

আর গুগলে র‍্যাঙ্ক করা ছাড়া আপনার ওয়েবসাইটে বেশি বেশি ভিজিটর নিয়ে আসতে পারবেন না। ইনাকাম ও সম্ভব নয়।

অবশ্যই পড়ুন,

আমরা আমাদের ওয়েবসাইট টিতে বিভিন্নভাবে SEO করতে পারি।

আপনি যদি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করেন, তাহলে আপনার সাইট টিকে ও আপনার লেখা আর্টিকেল গুলোকে SEO করা সহজ হয়ে যাবে।

কারণ,
ওয়ার্ডপ্রেসে এসইও করার জন্য প্লাগিন পাওয়া যায়। Rankmath ও Yoast এর মতো প্লাগিন গুলো আমাদের ওয়েবসাইট কে SEO করতে অনেক বেশি সাহায্য করে থাকে।

অপরদিকে গুগলের ব্লগারে প্লাগিন ব্যবহার করার অপশন না থাকায় SEO করা একটু কঠিন হয়ে যায়।

  • Security ( নিরাপত্তা)

নিরাপত্তার বিষয়টি বলতে গেলে কোন কোন ভাবে ব্লগার ই এগিয়ে থাকবে।

ব্লগার নাকি ওয়ার্ডপ্রেস
Security

কারণ এটা সম্পূর্ণ গুগলের প্রোডাক্ট।

যার ফলে এতে নিরাপত্তার বিষয়টি গুগল নিজেই করে থাকে।এরকম টা কখনো শোনা যায় না, ব্লগার এর থেকে কোন ওয়েবসাইট হ্যাক হয়ে গিয়েছে।

অপরদিকে যদি ওয়ার্ডপ্রেস এর কথা বলি, তাহলে এর নিরাপত্তার জন্য কিছু Security plugin ব্যবহার করতে হয়।

যার মাধ্যমে ওয়েবসাইট এর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব হলেও নিজের কিছু ভুলের জন্য ওয়েবসাইট হ্যাক ও হতে পারে।

তাই ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করলে নিরাপত্তা আপনাকে নিজেই নিশ্চিত করতে হবে।

আর ব্লগার ব্যবহার করলে, নিরাপত্তা জনিত বিষয়গুলো গুগল নিজেই দেখবে। এ নিয়ে আপনাকে খুব বেশি না ভাবলেও চলবে।

তবে জিমেইল, পাসওয়ার্ড ইত্যাদি বিষয়গুলো অবশ্যই ঠিকঠাকভাবে সংরক্ষণ করতে হবে।

  • Ownership (মালিকানা)

মালিকানার বিষয় টি দেখলে ওয়ার্ডপ্রেস আবারো ব্লগার থেকে এগিয়ে থাকবে।

কারণ, আপনি যখন ব্লগার এ ওয়েবসাইট ম্যানেজমেন্ট করবেন তখন আপনার ওয়েবসাইট এর পুরো কন্ট্রোল থাকে গুগলের কাছে।

আপনার ওয়েবসাইট এ তারা যদি এমন কিছু পায়, যা তাদের রুলস ও রেগুলেশনের কোন নিয়ম অমান্য করে তাহলে গুগল আপনার ওয়েবসাইটকে কোন রকম পূর্ব নোটিস ছাড়াই মুছে দিতে পারে।

যদিও এরকম টা খুব কম হয়।তারপরেও অজানা কোন ভুলের কারণে আপনার কষ্টের ওয়েবসাইট যদি চলে যায়।

তখন আর আপনার আফসোস এর সীমা থাকবে না।

আপনার জন্য ব্লগার ভালো হবে নাকি ওয়ার্ডপ্রেস?

এতক্ষণ ব্লগার আর ওয়ার্ডপ্রেসের মধ্যে পার্থক্য গুলো আমরা জানতে পারলাম।

এখনো যদি কোন কনফিউশান আপনার মাথায় থাকে যে “ব্লগার নাকি ওয়ার্ডপ্রেস ভালো হবে?”

তাহলে বলি-
ওয়ার্ডপ্রেসে ওয়েবসাইট করতে প্রথম বছরে ২০০০-২৫০০ টাকা খরচ হতে পারে।

যদি আপনার বাজেটে কোন প্রব্লেম না থাকে তাহলে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ওয়েবসাইট তৈরী করুন।

কারণ প্রায় ৯৫% ব্লগার কিছুদিন পর ব্লগার থেকে ওয়ার্ডপ্রেসে চলে যান।

যদি আপনার বাজেট একেবারেই না থাকে তাহলে ব্লগার দিয়ে শুরু করুন।তবে blogspot ব্যবহার না করে একটি আলাদা টপ লেভেল ডোমেইন কিনে নিন আর তা ব্লগার এ যুক্ত করুন।

এতে আপনাকে হোস্টিং এর খরচ দিতে হবে না। শুধু প্রতিবছর ডোমেইন এর খরচ দিলেই হবে।

প্রথম বছরে একটি টপ লেভেল ডোমেইন (.com, .Info, Net, .Org) কেনার জন্য ৩০০-৫০০ টাকা খরচ হতে পারে।

(প্রথম বছরে ডিসকাউন্ট পাওয়া যায়)পরের বছর থেকে ১৫০০ টাকার মতো লাগবে।

তারপর আপনার ওয়েবসাইট থেকে যখন ইনকাম শুরু হবে, তখন আলাদা হোস্টিং কিনে ব্লগার থেকে ওয়ার্ডপ্রেসে আপনার ওয়েবসাইট নিয়ে যেতে পারবেন।

শেষ কথাঃ

ডোমেইন হোস্টিং কেনা বা ওয়েবসাইট তৈরী নিয়ে আপনার যে কোন সমস্যায় আমাদের Contact us পেজ থেকে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

যুক্ত হোন আমাদের অনলাইন ইনকাম ও ব্লগ সংক্রান্ত ফেসবুক গ্রুপের সাথে।

ধন্যবাদ।

By Techmoshai Amin

টেকনোলজি সম্পর্কে পড়তে ভালোবাসি, লিখতে ভালোবাসি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *