কিওয়ার্ড রিসার্চ নিয়ে পড়তে হলে সবার আগে আপনাদের যা জানতে হবে, তা হলো-
Keyword research আসলে কি?

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করা যায়?

কিওয়ার্ড কি?

কিওয়ার্ড রিসার্চ

কিওয়ার্ড হলো, এক বা একাধিক শব্দ – যেগুলো দিয়ে লোকেরা গুগল বা এরকম সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে সার্চ করে।

মনে করুন, আমি একটি আর্টিকেল লিখছি, “এসইও (SEO) কি? এসইও কিভাবে করা যায়?” এই বিষয়ে।

এখন SEO রিলেটেড যে শব্দ গুলো দিয়ে লোকেরা গুগলে খুঁজবে, সে গুলোই হচ্ছে কিওয়ার্ড।

যেমন,

Seo কি?

seo কত প্রকার?

seo কিভাবে করতে হয়?

ইত্যাদি।

রিসার্চ কি?

রিসার্চ হলো, যে কোন একটি বিষয় নিয়ে ঘাটাঘাটি করা। সেই ঘাটাঘাটি টা যখন হবে কিওয়ার্ড নিয়ে, তখন আমরা সেটাকে Keyword research বলতে পারি।

তাহলে,

কিওয়ার্ড রিসার্চ কি? (What is Keyword research in Bangla)

একদম সহজ করে বলতে হলে- Keyword research হলো, কিছু কিওয়ার্ড নিয়ে রিসার্চ করা, আর সেই কিওয়ার্ড গুলো দিয়ে আর্টিকেল লেখা। যাতে করে তা গুগলে সহজেই র‍্যাঙ্ক করে।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কেন এত গুরুত্বপূর্ণ?

আমরা জানি, নানা উপায়ে ব্লগ থেকে অনলাইনে ইনকাম করার জন্য, সবচাইতে বেশি প্রয়োজন হচ্ছে ভিজিটর।

আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে যতবেশি ভিজিটর থাকবে, আপনার ইনকামের পরিমাণ ততবেশি বেড়ে যাবে।

এখন প্রশ্ন হলো, ওয়েবসাইটে কিভাবে বেশি বেশি ভিজিটর নিয়ে আসা যায়? ওয়েবসাইটে ভিজিটর নিয়ে আসার অনেক উপায় রয়েছে।

তবে ব্লগে ট্রাফিক নিয়ে আসার জন্য, সবচেয়ে ভালো ও জনপ্রিয় মাধ্যম হলো- লেখাকে গুগলে র‍্যাঙ্ক করানো।

আর আপনার লেখা গুগলে র‍্যাঙ্ক করানোর জন্যই, কিওয়ার্ড রিসার্চ করা এত বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

আপনি যদি ঠিকঠাক মতো কিওয়ার্ড রিসার্চ করেন, তাহলে আপনার লেখাকে গুগলে র‍্যাঙ্ক করানো অনেক সহজ হয়ে যাবে।

ফলে ব্লগে ট্রাফিক আসবে প্রচুর, সেই সাথে ইনকাম হবে খুব ভালো পরিমাণে।

তাই আর্টিকেল লেখার আগে কিওয়ার্ড রিসার্চ করা খুবই জরুরী।

তো আশা করি, “কিওয়ার্ড রিসার্চ কেন এত গুরুত্বপূর্ণ “ তা বুঝতে পেরেছেন।

কিওয়ার্ড কত প্রকার?

কিওয়ার্ড কে আমরা সাধারণত ২ প্রকারে ভাগ করে ফেলতে পারি –

১. শর্ট কিওয়ার্ডঃ (Short keyword) যে কিওয়ার্ড গুলো ছোট ছোট হয় সেগুলোই শর্ট কিওয়ার্ড।

যেমন, আমি যদি Keyword research নিয়ে লিখি। তাহলে, Keyword কি? বা কিওয়ার্ড রিসার্চ কি?

তাহলে এগুলো এক একটি Short keyword.

২. লং টেইল কিওয়ার্ড (Long tail keyword)-ঃ

লং টেইল কিওয়ার্ড একটু বড় আকারে হয়ে থাকে।

যেমন মনে করুন- কেউ সার্চ করলো, Keyword research কিভাবে করবো? অথবা কিওয়ার্ড রিসার্চ কেন গুরুত্বপূর্ণ ?

তখন এ লম্বা লম্বা কিওয়ার্ড গুলো কে বলা হয় Long tail keyword.

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

আপনি হয়তো ইতোমধ্যে বুঝতে পেরেছেন যে, কিওয়ার্ড রিসার্চ করা ছাড়া গুগলে র‍্যাঙ্ক করা সম্ভব নয়।

তাই সঠিক ভাবে কিওয়ার্ড রিসার্চ করা খুব জরুরী।

Keyword research এর মাধ্যমেই আপনি জানতে পারবেন গুগলে কোন বিষয়ে কি রকম সার্চ হচ্ছে। বুঝতে পারবেন লোকেরা কোন শব্দ গুলো ব্যবহার করে সার্চ করছে।

Google এর অটোসাজেশন-

আপনি যখন গুগলে কোন বিষয়ে সার্চ করতে চান তখন দেখবেন গুগল অটোমেটিক ভাবে কিছু সাজেশন আপনাকে দিচ্ছে।

অথবা সার্চ রেজাল্টের একদম নিচে এমন কিছু কিওয়ার্ডের সাজেশন গুগল দিয়ে থাকে, যেগুলো নিয়ে আর্টিকেল লিখলে- আপনি সহজেই র‍্যাঙ্ক করতে পারেন।

আর যেহেতু লোকেরা এগুলো নিয়ে অনেক বেশি সার্চ করে, তাই গুগল থেকে খুব ভালো পরিমাণে অর্গানিক ট্রাফিক ও আপনি পেতে থাকবেন।

Keyword research এর ক্ষেত্রে আপনি গুগলের এ অটোসাজেশনকে কাজে লাগাতে পারেন।

Online tool দিয়ে কিওয়ার্ড রিসার্চ –

keyword রিসার্চ করার জন্য অনলাইনে খুব ভালো ভালো কিছু ওয়েবসাইট টুল পাওয়া যায়। যেগুলো দিয়ে আমরা খুব সহজেই আমাদের ওয়েবসাইট এর সমস্ত তথ্য  যাচাই বাচাই করতে পারি।

Keyword research করতে হলে, যে বিষয়গুলো জানতেই হবে-

ইন্টারনেট টুল দিয়ে কিওয়ার্ড রিসার্চ করার পূর্বে কয়েকটি বিষয় সম্পর্কে আপনার পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে।

তাহলে আপনি সঠিক ভাবে keyword নিয়ে রিসার্চ করতে পারবেন।

চলুন বিষয় গুলো জেনে নেয়া যাক-

Search volume ( সার্চ ভলিউম) :

Search volume হচ্ছে, আপনি যে কিওয়ার্ড টি নিয়ে লিখবেন- সেটি গুগলে কি পরিমাণে সার্চ হচ্ছে, তা জেনে নেয়া।

বুঝতেই পারছেন, গুগল থেকে ট্রাফিক পাওয়ার জন্য এর গুরুত্ব অনেক খানি।

কারণ, আপনি যদি এমন কিওয়ার্ড নিয়ে আর্টিকেল লিখেন- যা গুগলে কোন সময় কেউ সার্চ ই করে না, তাহলে তা সার্চ রেজাল্টের ১ম এ দেখালেই লাভ টা কি? কোন লাভ নেই।

আপরদিকে, আপনি যদি এমন কোন কিওয়ার্ড নিয়ে আর্টিকেল লিখেন, যা দিয়ে গুগলে মাসে ৩০০০ বার সার্চ হয়।

আর সে লেখাটি যদি র‍্যাংকিং এ ১ম এ থাকে তাহলে এর থেকে প্রায় ৯৮% ভিজিটর ই আপনার পাওয়া সম্ভব।

Keyword research
Search Engine Ranking

সুতরাং, কোন কিওয়ার্ড নিয়ে লেখার আগে গুগল বা এরকম সার্চ ইঞ্জিন গুলোতে কি পরিমাণে সার্চ মানে এটার সার্চ ভলিউম কি তা আগে জেনে নেয়া খুবই দরকারী।

CPC CPC এর মানে হচ্ছে Cost Per Click .

কোন ভিজিটর যখন আপনার ব্লগে পড়তে আসবে। আর ব্লগে চলতে থাকা কোন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করবে।

তখন তা থেকে ঠিক কি পরিমাণে ইনকাম হবে, সেটাই হচ্ছে CPC. সুতরাং যে কিওয়ার্ড গুলোতে বেশি CPC দেয়া আছে, সেগুলো নিয়ে লিখলে- আপনার ইনকাম হবে অনেক বেশি।

Adsense CPC বাড়ানোর উপায় অনেকগুলো রয়েছে। তার মধ্যে একটি হচ্ছে বেশি সিপিসি দেয় এমন কিওয়ার্ড গুলো নিয়ে আর্টিকেল লেখা।

তাই কোন বিষয়ে আর্টিকেল লেখার আগে তার কিওয়ার্ড গুলোর সিপিসি কেমন সেটা জানা প্রয়োজন।

তাহলে, ব্লগ থেকে ইনকাম এর পরিমাণ সহজেই বাড়িয়ে নেয়া যায়।

SD (এসইও ডিফিকাল্টি)

SD বা Seo Difficulty কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

আপনি হয়তো SEO সম্পর্কে বিস্তারিত জানেন, যদি না জেনে থাকেন- এটা অবশ্যই একবার পড়ুন,

Seo Difficulty যত কম হবে, আপনার আর্টিকেল কে র‍্যাঙ্ক করানো তত সহজ হবে।

তাই আপনি যদি নতুন ব্লগার হয়ে থাকেন, তাহলে আপনার উচিত হবে ৭ এর নিচে SD আছে এমন কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ করা।

তবে এ ক্ষেত্রে সার্চ ভলিউম ভালো আর SEO Difficulty কম এমন Keyword পাওয়া মুশকিল।

তবে, নতুনদের জন্য আমার পরামর্শ হচ্ছে, নতুন অবস্থায় আপনি এ বিষয় গুলো অবশ্যই মেনে চলুন।

  • আপনি Long tail keyword (লম্বা কিওয়ার্ড) ব্যবহার করুন।
  • বেশি সার্চ হয় ( সার্চ ভলিউম বেশি) এমন কিওয়ার্ড গুলো বেছে নিন।
  • Seo difficulty ৭ এর কম এমন কিওয়ার্ড নিন।

তাহলে লেখাকে সার্চ ইঞ্জিনে সহজে র‍্যাঙ্ক করতে পারবেন। আর অনেক বেশি অর্গানিক ট্রাফিক আপনি গুগল থেকে পেতে পারেন।

PD (Paid Difficulty)

PD এর ফুল মিনিং হচ্ছে Paid Difficulty.

এর মানে হচ্ছে, “আপনি যদি আপনার কোন লেখার বিজ্ঞাপন দিতে চান, তাহলে সবার উপরে আসা কেমন সহজ হবে” সেটা জানা।

মনে করুন, আপনি একটি আর্টিকেল লিখলেন “ ব্লগে ট্রাফিক কিভাবে বাড়ানো যায়?” এই বিষয়ে।

এখন যদি এই আর্টিকেলের বিজ্ঞাপন আপনি দিতে চান, তাহলে সবার প্রথমে আসতে কেমন সহজ হবে সেটা জেনে নেয়া যায় PD (Paid Difficulty) এর মাধ্যমে।

PD যত কম থাকবে, তত সহজে আপনি সবার আগে যেতে পারবেন।

কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জনপ্রিয় টুল-

কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য ইন্টারনেটে অনেক ধরনের টুল রয়েছে।

যার মধ্যে পেইড ও ফ্রী দুটোই আছে।

কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় ২টি টুল হচ্ছে

  1. SEMrush
  2. Ahref

এ দুটি অনলাইন টুলের মাধ্যমে আপনি সহজেই কিওয়ার্ড রিসার্চ সহ আপনার ওয়েবসাইট এর জন্য অতি দরকারী অনেক কিছু পেয়ে যাবেন।

ব্যাক্তিগতভাবে আমি SEMrush পছন্দ করে থাকি।

এদুটো টুল ই পেইড। মানে এদের সুবিধা নিতে হলে আপনাকে তাদের টাকা প্রদান করতে হবে।

তবে আপনি ফ্রী তেও কিছু সুবিধা পাবেন। উপরের লিংক থেকে রেজিষ্ট্রেশন করে রাখুন।

Keyword research করার free tool

আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন, আর খরচ করার মতো বাজেট না থাকে- তাহলে আমি আপনাকে পরামর্শ দেবো Neilpatel এর ubbersuggest ব্যবহার করার জন্য।

এতে প্রতিদিন আপনি ফ্রীতে ৩টি কিওয়ার্ড নিয়ে মুটামুটি রিসার্চ করতে পারেন।

তবে আপনার যদি হাতে বাজেট থাকে তাহলে আমি বলবো, অবশ্যই SEMrush অথবা Ahref ব্যবহার করুন।

এ দুটি টুল ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটের সমস্ত তথ্য গুলো পেয়ে যাবেন এবং কিওয়ার্ড রিসার্চও খুব সহজেই করতে পারবেন।

Keyword research এর মূল কথা-

  • লোকেরা পড়তে আগ্রহী এমন বিষয়ে আর্টকেল লিখুন।
  • সে বিষয়ে জানার জন্য লোকেরা গুগলে কি Keyword টাইপ করছে তা জানুন।
  • তারপর সেই Keyword গুলো নিয়ে রিসার্চ করুন।
  • Search volume যেন অবশ্যই বেশি থাকে।
  • CPC (Cost Per Click) বেশি থাকবে।
  • SD (SEO Difficulty) যত কম থাকবে, র‍্যাঙ্ক করা তত সহজ হবে।

By Techmoshai Amin

টেকনোলজি সম্পর্কে পড়তে ভালোবাসি, লিখতে ভালোবাসি।

One thought on “Keyword research কি? কিভাবে কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে হয়?”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *